সুন্দরবনের মধু 100% খাটিঁ ও প্রাকৃতিক

Tareq Imran Khan এর মাধ্যমে বিক্রির জন্য24 নভে 8:26 এএমমুরাদপুর, চট্টগ্রাম

৳ ৮০০

সুন্দরবন বাংলাদেশের গর্ব। আমাদের প্রাকৃতিক ঐতিহ্য। প্রচুর প্রাকৃতিক সম্পদে ভরপুর আমাদের সুন্দরবন। সুন্দরবনে যত প্রাকৃতিক সম্পদ আছে তার মধ্যে অন্যতম হল সুন্দরবনের মধু। সুন্দরবনের মধু পৃথিবীর বিখ্যাত মধুগুলোর মধ্যে অন্যতম। আবার সারা বাংলাদশেে যে সমস্ত মধু পাওয়া যায় এগুলার মধ্যে স্বাদ,গুণে,মানে ও পুষ্টিতে সব দিক থেকে সুন্দরবনরে মধু সবচেয়ে উৎকৃষ্ট ও ঔষধি গুণে ভরপুর । সুন্দরবনে যে সমস্ত গাছের ফুলের মধু সংগ্রহ হয় তার মধ্যে অন্যতম হল খলিসা গাছ, গড়ান গাছ, কেওরা গাছ, বাইন গাছ ও গেওয়া গাছের ফুলের মধু। সুন্দরবনের মধু সংগ্রহ হয় চৈত্র, বৈশাখ, জৈষ্ঠ এই তিন মাস। সুন্দরবনে চৈত্র মাসে প্রথম যে মধুটা উৎপন্ন হয় তা হল খলিশা গাছের ফুলের হালকা লাল পদ্মা মধু । এর পরে হবে গড়ান গাছের ফুলের মুধ। লাল কালারের হবে। তার পরে হবে কেওরা গড়ান একটু গাড় লাল। এর পরে বাইন ও গেওয়া গাছের ফুলের মধু। এক সুন্দরবনেই তিন কালারের মধু উৎপন্ন হয়। আর এগুলার মধ্যে সবচেয়ে উৎকৃষ্ট হল চৈত্র মাসে উৎপন্ন খলিশা গাছের মধু । আর আমরা সুন্দরবনের সবচেয়ে উৎকৃষ্ট খলসিা ফুলরে মধু সংগ্রহ করি এরপর সারা বৎসর বিক্রয় করি।সুন্দরবনে বনবিভাগের পারমিট প্রাপ্ত সবচেয়ে অভিজ্ঞ ও প্রশিদ্ধ মৌয়ালদের দ্বারা মধু আহরন ও সংগ্রহ করে কোন প্রকার মিশ্রণ ছাড়া বিক্রয় করি । তাই আমি শতভাগ (১০০%) খাঁটি ,হালাল ও প্রাকৃতিক নিম্চয়তা দিচ্ছি আপনাকে ।
ডেলিভারি ও অর্ডার প্রক্রিয়া : সারাদেশে যেকোন এলাকায় আমরা পাইকারী ,খুচরা আকারে বিক্রয় করছি ।খুচরা অর্ডারের ক্ষেত্রে ১ কেজি সর্বনিম্ন এবং মূল্যের সাথে এলাকাভিত্তিক ডেলিভারি চার্জ পরিশোধ করতে হবে। চট্টগ্রাম শহরের মধ্যে যেকোন এলাকায় আমরা হোম ডেলিভারি দিচ্ছি ডেলিভারি চার্জ ৫০ টাকা যোগ হবে মোট মুল্যের সাথে মোবাইল ফোনের মাধ্যমে অর্ডার দিতে পারবেন ।
খাঁটি মধু চেনার কিছু উপায়
বর্তমানে আমরা বাজার থেকে যে মধু কিনে আনি তা যে কতটুকু খাঁটি তা বলা মুশকিল । মধুর মধ্যে সাধারণত ভেজাল হিসেবে পানি, চিনি ও আরও অনেক কিছু মেশানো হয় । চলুন আমরা জেনে খাঁটি মধু চেনার কিছু উপায় –
১। খাঁটি মথু যাচায়ের সবচেয়ে উৎকৃষ্ট ও নির্ভরযোগ্য পন্থা হল মধুকে ডিপ ফ্র্রিজের মধ্যে রেখে দিন । খাঁটি মধু জমাট বাধবেনা তবে ঘনত্ব বাড়বে জেলির মত আর ভেজাল মধুতে যাই মিশ্রণ করুননা কেন জমাট বাধবে ।
২। খানিকটা পানি নিন গাসে তার মাঝে এক চামচ মধু দিন।খাঁটি মধু গসের নিচে বসে যাবে আর যদি মধু পানির সাথে মিশে যায়, তাহলে বুঝবেন যে এটা অবশ্যই নকল। আসল মধুর ঘনত্ব পানির চাইতে অনেক বেশী, তাই সহসা মিশবে না। এমনকি নাড়া না দিলে ২ কিংবা ৩ ঘণ্টাতেও মধু পানিতে মিশবে না। খাঁটি মধুতে লিপিডের পরিমাণ বেশি থাকে, পক্ষান্তরে নকল মধুতে থাকে চিনি যা কার্বোহাইড্রেট।
৩।মধুতে কখনো কটু গন্ধ থাকবে না। খাঁটি মধুর গন্ধ হবে মিষ্টি ও আকর্ষণীয়। মধুর স্বাদ হবে মিষ্টি, এতে কোনও ঝাঁঝালো ভাব থাকবে না। তাছাড়া এই মধু খাওয়ার সময় আপনার নাকে একটি মিষ্টি গন্ধ লাগবে। বাজারে পাওয়া মধুতে যদি আপনি এই ধরনের কটু গন্ধ পেয়ে থাকেন কিংবা মধুর স্বাদে যদি কিছুটা ঝাঁঝালো ভাব থাকে তবে বুঝবেন এটি খাঁটি মধু না।
৪। শীতের দিনে খাঁটি মধু দানা বেঁধে যায়। অনেকটা নারকেল তেলের মতো আর কুকুর কখনো খাঁটি মধু খায় না। যদি কুকুরকে মধু দিলে সে তা খেয়ে নেয়, বুঝবেন মধু খাঁটি নয়। কুকুর মিষ্টিজাতীয় খাবার পছন্দ করে কিন্তু মধুতে একটি প্রাকৃতিক গন্ধ রয়েছে যা কুকুর পছন্দ করে না।
৫। ব্রেডে কিংবা রুটিতে খাঁটি মধু মাখলে সেটা তৎক্ষণাৎ শক্ত হয়ে যায়; অন্যদিকে কৃত্তিম মধু ব্রেড কিংবা রুটি’কে সিক্ত করে। কারণ কৃত্তিম মধু’তে প্রচুর পানি থাকে।
৬। খুব ভাল ঘ্রাণশক্তি থাকলে খাঁটি মধুর থেকে ফুলের গন্ধও পাওয়া যায় (যে ফুল থেকে মধু তৈরি হয়েছে)।
৭।অনেকদিন রাখলে খাঁটি মধু কেলাস গঠন করে, কৃত্তিম মধু তা করে না।
৮। খাঁটি কাগজে এক ফোঁটা দিলে কাগজ ভিজে না, ভিজলেও শুকিয়ে যায় দ্রুতই; কারণ খাঁটি মধুতে পানি থাকে না বললেই চলে। কৃত্তিম মধু কাগজে দিলে, কাগজ ভিজে থাকে অনেকক্ষণ।
৯।খাঁটি মধু দেখতে তেমন পরিষ্কার নয় এবং এতে পরাগরেণু ভাসতে দেখা যায়। এজন্য মধু প্রক্রিয়াজাতকরণ প্রতিষ্ঠান গুলো পরাগরেণু দূর করার জন্য মধু’কে পাস্তুরিত করে। এতে বেশ পরিষ্কার এবং উজ্জ্বল বর্ণের খাঁটি মধু পাওয়া যায়। তবে এই প্রক্রিয়ার সবচেয়ে বড় সমস্যা হল, পাস্তুরিত করার পর মধুর অনেক গুণাগুণই আর থাকে না।
১০। মেথিলেটেড স্পিরিট পরীক্ষা : সমান অনুপাতে মধু এবং মেথিলেটেড স্পিরিট মিশ্রিত করে নাড়াতে থাকুন। খাঁটি মধু দ্রবীভুত না হয়ে তলনীতে জমা হবে । আর ভেজাল মধু দ্রবীভূত হয়ে মেথিলেটেড স্পিরিটকে মিল্কি করবে ।
১১। শোষণ পরীক্ষা : কয়েক ফোঁটা মধু একটি বটিং পেপারে নিন ও পর্যবেক্ষণ করুন । খাঁটি মধু বটিং পেপার কর্তৃক শোষিত হবে না । ভেজাল মধু বটিং পেপারকে আর্দ্র করবে ।
১২। কলংক পরীক্ষা : একটুকরা সাদা কাপড়ের উপর সামান্য পরিমাণ মধু নিন এবং কিছুক্ষন পর কাপড়টি ধৌত করুন । ধোয়ার পর কাপড়টিতে যদি কোন দাগ থাকে তবে মধুতে ভেজাল আছে । আর যদি কোন দাগ না থাকে তবে মধু খাঁটি ।

****মধুর স্বাস্থ্য উপকারিতা ও রুপর্চচায় মধুর ব্যবহার সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে মধুর সাথে আমাদের নির্দেশিকাটি সংগ্রহ করুন ****
এতে আছে খাঁটি মধু যাচাই করার বিভিন্ন পরীক্ষা পদ্ধতি ও মধুর নানাবিধ স্বাস্থ্য উপকারিতার বিস্তারিত বিবরণী ।


খাদ্যদ্রব্যের ধরণ:
অন্যান্য
অভিযোগ করুন

যোগাযোগ করুন

  • 01815942245
  • 01625924824

 

নিরাপদ থাকুন!

  • সর্বদা বিক্রেতার সাথে সরাসরি দেখা করবেন
  • আপনি যা কিনতে যাচ্ছেন তা দেখার পূর্বে কোনো টাকা পরিশোধ করবেন না
  • অচেনা কারও নিকট টাকা পাঠাবেন না

দেখুন:

  • অবাস্তব মূল্য
  • অতিরিক্ত ফি
  • অগ্রিম অর্থ প্রদানের অনুরোধ
  • ব্যক্তিগত তথ্যের জন্য অনুরোধ

নিরাপদে থাকার আরও কিছু কৌশল


বিজ্ঞাপনটি শেয়ার করুন

অনুরূপ বিজ্ঞাপনসমূহ