সেনজেন ভিসা

LATIF TRAVELS সদস্য এর মাধ্যমে বিক্রির জন্য১১ সেপ্ট ৫:১৬ পিএমউপশহর, সিলেট

আলোচনা সাপেক্ষে

আলোচনা সাপেক্ষে


সেনজেন ভিসা সলিউশন নিশ্চিত সফলতার সাথে ইউরোপের সেনজেনভুক্ত ২৬টি দেশে ভিজিট ভিসা প্রসেসিং করে থাকে। চলুন প্রথমে সেনজেন ভিসা সম্পর্কে একটু জেনে নেই।

সেনজেন চুক্তির আওতায় ইউরোপের ২৬টি দেশে আলাদা ভিসা ছাড়াও প্রবেশ করা ও বের হওয়া যাবে। এই চুক্তির কারনে, সেনজেনভুক্ত কোন দেশ থেকে সেনজেন ভিসা পেলে আপনি ২৬টার প্রায় সবগুলো দেশেই কোন ঝামেলা ছাড়া প্রবেশ ও বের হতে পারবেন। এই দেশগুলো হচ্ছে নেদারল্যান্ডস, স্পেন, ফিনল্যান্ড, ফ্রান্স, জার্মানি, পোল্যান্ড, পর্তুগাল, স্লোভাকিয়া, স্লোভেনিয়া, সুইডেন, সুইজারল্যান্ড, ডেনমার্ক, অস্ট্রিয়া, বেলজিয়াম, চেক প্রজাতন্ত্র, এস্তোনিয়া, গ্রীস, হাঙ্গেরি, আইসল্যান্ড, ইতালি, লাতভিয়া, লিত্ভা, লাক্সেমবার্গ, মাল্টা, নরওয়ে ও লিচেনস্টাইন।
We are govt approved Travel agency
যেসব কাগজপত্র জমা দিতে হয়:
=======================

১। সঠিকভাবে পূরণকৃত ভিসা এপ্লিকেশন ফর্ম ও ভিসা ফি।
২। কোম্পানির লেটারহেড প্যাডে একটা আবেদন পত্র। এখানে নিজের সম্পর্কে, কোম্পানির সম্পর্কে, ভ্রমনের উদ্দেশ্য, ভ্রমণের তালিকা ইত্যাদি সম্পর্কে বিবরণী দিতে হয়।
৩। ইনভাইটেশন লেটার ও ইনভাইটেশন সংক্রান্ত প্রমানাদির ডকুমেন্ট।
৪। সঠিক মাপের ১ কপি রঙ্গিন ছবি ভিসা এপ্লিকেশন ফর্মের সাথে এটাচ করা।
৪। ইংরেজিতে অনুবাদকৃত ট্রেড লাইসেন্স এর নোটারিকৃত কপি।
৫। ইউরোপের ভিসা আবেদনের সাথে অবশ্যই ট্রাভেল হেলথ ইনস্যুরেন্স লাগবে।
৬। বিবাহিত হলে ভিসা এপ্লিকেশন ফর্ম এর সাথে ইংরেজিতে অনুবাদকৃত নিকাহনামা / ম্যারিজ সার্টিফিকেট এর নোটারিকৃত কপি।
৮। বিজনেস কার্ড, ব্যবসায়ী হলে ব্যবসায় ব্যবহৃত নিজের বিজনেস কার্ড।
৯। ব্যক্তিগত ব্যাংক স্টেটমেন্ট ও ব্যাংক সলভেন্সি সার্টিফিকেট।
১০। একক মালিকানার প্রতিষ্ঠান হলে কোম্পানির ব্যাংক স্টেটমেন্ট ও ব্যাংক সলভেন্সি সার্টিফিকেট।
১১। সঠিকভাবে তৈরি করা ট্যুর আইটেনারি/প্ল্যান: আপনি কবে-কবে কোথায় যাবেন, কোথায় থাকবেন, কি কি করবেন সেটার একটা লিখিত পরিকল্পনা দিতে হয়।
১২। এসেট ভ্যালুয়েশন স্টেটমেন্ট (স্ট্যাম্পে কম্পোজকৃত) এর নোটারিকৃত কপি জমা দিতে হবে, যেখানে আপনার এই দেশে কি কি সম্পদ আছে তার বিবরণ দিতে হবে। যেসব এসেট উল্লেখ করা যাবে: বাড়ি, জমি, ফ্ল্যাট, গাড়ি, মূল্যবান কোন সম্পদ ইত্যাদি। এগুলোর সব একত্র করে একটা ভ্যালু তৈরি করতে হবে। স্ট্যাম্পে প্রিন্ট করে নোটারি করে জমা দিতে হয়।
১৩। হোটেল বুকিং কনফার্মেশন, ফ্লাইট টিকেট, ইন্টারনাল ট্রান্সপোর্ট টিকেট ইত্যাদির প্রিন্টেড কপিও ভিসা এপ্লিকেশনের সাথে জমা দিতে হয়।
১৪। ইনকাম ট্যাক্স সার্টিফিকেট ইংরেজিতে অনুবাদ করে নোটারি করে ভিসা এপ্লিকেশনের সাথে জমা দিতে হয়।

এবার আসুন বাংলাদেশিদের সেনজেন ভিসা এপ্লিকেশন কেন রিজেক্ট হয় এই কারণগুলো বলি:
◆ আবেদনকারী সঠিকভাবে ডকুমেন্টগুলো তৈরি করেনি।
◆ আবেদনকারীর ব্যাংক স্টেটমেন্ট তেমন ভালো না।
◆ আবেদনকারীএর আগে তেমন কোনো দেশ ভ্রমণ করেনি, ব্ল্যাংক পাসপোর্ট কিংবা দুই একটা দেশ ভ্রমণ করেই সেনজেন এর ভিসার আবেদন করে বসেছে।
◆ আবেদনকারীর দেশে না ফিরে আসার সম্ভবনা রয়েছে।

সেনজেন ভিসা সলিউশন উপরের সবগুলো দিকের উপর খেয়াল রেখে এমন ভাবে আপনার ফাইল রেডি করবে যেন আপনার ভিসা রিজেক্ট হওয়ার সম্ভবনা একেবারেই থাকবে না।

সময় লাগবে ১-৬ মাস।

সকল প্রসেসিং ও কনসাল্টেন্সি ফি ভিসা প্রসেসিং এর পরে দিতে হবে।

বিস্তারিত জানতে যোগাযোগ করুন :-

লতিফ ট্রাভেলস
লতিফ হলিডেইস
রোজ ভিউ কমপ্লেক্স, উপশহর, সিলেট।


সেবার ধরণ:
ভিসা
অভিযোগ করুন

যোগাযোগ করুন

  • ০১৭০৮৪২৪৪৪৭

 

নিরাপদ থাকুন!

  • সর্বদা বিক্রেতার সাথে সরাসরি দেখা করবেন
  • আপনি যা কিনতে যাচ্ছেন তা দেখার পূর্বে কোনো টাকা পরিশোধ করবেন না
  • অচেনা কারও নিকট টাকা পাঠাবেন না

দেখুন:

  • অবাস্তব মূল্য
  • অতিরিক্ত ফি
  • অগ্রিম অর্থ প্রদানের অনুরোধ
  • ব্যক্তিগত তথ্যের জন্য অনুরোধ

নিরাপদে থাকার আরও কিছু কৌশল

চ্যাট
এই মেম্বারের পেইজ ভিজিট করুন
LATIF TRAVELS

প্রতিষ্ঠা ও সাফল্যের ৫৭ বছর



বিজ্ঞাপনটি শেয়ার করুন
এই বিজ্ঞাপনটি প্রচার করুন

LATIF TRAVELS থেকে আরও বিজ্ঞাপন